করোনাভাইরাস ঠেকাতে কঠোর সতর্কতায় ওমান

ক্যাটাগরি: আন্তর্জাতিক, প্রবাস, শিরোনাম, সর্বশেষ-সংবাদ, স্বাস্থ্য ও রুপচর্চা

Posted: January 31, 2020 at 4:50 pm

করোনাভাইরাস ঠেকাতে কঠোর সতর্কতায় ওমান -Digital Khobor

ফাইল ছবিঃ 


করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে ওমানের সকল বিমানবন্দরে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। ভাইরাস ঠেকাতে মাস্কাট সহ দেশের বিমানবন্দরগুলোতে চীন এবং অন্যান্য এশীয় দেশ থেকে আসা যাত্রীদের স্ক্যানিং (পরীক্ষা) করা হচ্ছে। ইতিমধ্যেই করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব চীনের বাইরেও ছড়িয়ে পড়ায়, বিশ্বব্যাপী স্বাস্থ্য জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এর আগেও পাঁচবার বৈশ্বিক জনস্বাস্থ্য জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছে। কোন রোগ খুব দ্রুত এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় ছড়িয়ে পড়ার কারণে জনস্বাস্থ্য ঝুঁকি মুখে পড়লে এই জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়। বিশেষ করে যদি এই প্রাদুর্ভাবের এমন বড় কোন ঘটনা ঘটে যা বৈশ্বিক উদ্বেগের সৃষ্টি করে।

সোয়াইন ফ্লু, ২০০৯
এইচ-ওয়ান-এন-ওয়ান ভাইরাসটি ২০০৯ সালে বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছিল, এতে প্রায় ২ লক্ষাধিক মানুষ মারা যায়।

পোলিও, ২০১৪
২০১২ সালে পোলিও প্রায় নির্মূলের পর্যায়ে চলে গেলেও ২০১৩ সালে পোলিওর সংখ্যা আবার বেড়ে যায়।

জিকা, ২০১৬
আমেরিকা অঞ্চলে জিকা রোগটি দ্রুত ছড়িয়ে পড়ার পরে ডব্লিউএইচও ২০১৬ সালে জনস্বাস্থ্য জরুরি অবস্থা ঘোষণা করে।

ইবোলা, ২০১৪ এবং ২০১৯
পশ্চিম আফ্রিকাতে প্রায় ৩০ হাজার লোক সংক্রামিত হওয়ায় এবং ১১,০০০ মানুষ এই ইবোলায় প্রাণ হারানোর কারণে ভাইরাসটির বিরুদ্ধে প্রথম জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয় ২০১৪ সালে আগস্টে। যা ২০১৬ সালের মার্চ মাস পর্যন্ত স্থায়ী হয়েছিল।

ডিআর কঙ্গোতে এই প্রাদুর্ভাব পুনরায় ছড়িয়ে পড়ায় গত বছর অর্থাৎ ২০১৯ সালে দ্বিতীয়বারের মতো জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়।

ইতিমধ্যেই জরুরী প্রয়োজন না থাকলে ওমানের নাগরিকদের চীন ভ্রমণে না যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় । বুধবার (২৯ শে জানুয়ারি) ওমানের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ড. আহমেদ বিন মোহাম্মদ আল সাইদীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত করোনাভাইরাসের সর্বশেষ পরিস্থিতি ও প্রস্তুতি নিয়ে দ্বিতীয় বৈঠকে এই আহবান জানানো হয়েছে। বৈঠকে করোনা ভাইরাসের প্রকোপ মোকাবেলায় ওমানে নেওয়া সতর্কতামূলক ব্যবস্থাগুলি পর্যালোচনা করার পাশাপাশি সকল প্রবেশের বিষয়গুলির জন্য প্রস্তুতি এবং জরুরি পরিকল্পনা নিয়ে আলোচনা করা হয়। ওমানের প্রদেশ জুড়ে জনস্বাস্থ্যের জরুরী পরিকল্পনা ও প্রস্তুতির প্রয়োজনীয়তা এবং স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের মধ্যে সমন্বয়ের গুরুত্বও তুলে ধরা হয়। বৈঠকে করোনাভাইরাসে এ পর্যন্ত ১৩০ জনেরও বেশি মানুষের জীবনহানি হয়েছে উল্লেখ করে দেশের নাগরিকদের চীনে সকল অপ্রয়োজনীয় ভ্রমণ এড়াতে পরামর্শ দেওয়া হয়।

ওমান স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের (এমওএইচ) প্রকাশিত বিবৃতি অনুসারে, বৈঠকে স্বাস্থ্যমন্ত্রী সুপারিশ করেন যে, নাগরিকরা কেবল প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে চীন ভ্রমণ করতে পারেন। তিনি এই সঙ্কট মোকাবেলার জন্য ওমানের তৎপরতার উপর জোর দেন এবং আশা করছেন যে প্রত্যেক নাগরিক সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে সহযোগিতা করবেন। স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও বলেন,’করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পর থেকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জরুরি ব্যবস্থাগুলো সক্রিয় করেছে এবং সীমান্তে নিয়োজিত সকল সংস্থার সাথে সমন্বয় করে প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছ।’ এতে আরও ঘোষণা করা হয় “যারা চীন থেকে আসবেন তারা সীমান্তে (বিমান, স্থল ও সমুদ্র বন্দর) পৌঁছালে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দেওয়া নির্দেশিকা অনুসরণ করবেন” বিবৃতিতে বলা হয়েছে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় তার নাগরিক এবং বাসিন্দাদের (প্রবাসী) অফিসিয়াল উৎস থেকে তথ্য গ্রহণের জন্য এবং কোনও অনুসন্ধান বা সন্দেহের ক্ষেত্রে এমএইচ এর সাথে কল সেন্টারের (24441999) যোগাযোগ করার জন্য আহ্বান জানিয়েছে।

এ দিকে মঙ্গলবার এমওএইচ এবং অন্যান্য স্বাস্থ্য-নিয়ন্ত্রক সংস্থাগুলি ভাইরাস মোকাবেলার প্রস্তুতি নিরীক্ষণের জন্য সোহার বিমানবন্দর এবং সমুদবন্দরে পরিদর্শন করেন। “স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের মহাপরিচালক ও নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর (এমওএইচ) এবং উত্তর আল-বাতিনা প্রদেশের স্বাস্থ্যসেবা-মহাপরিচালক বেশ কয়েকজন এমওএইচ বিশেষজ্ঞকে নিয়ে সোহার বিমানবন্দর এবং সোহার সমুদ্র বন্দরটি পরিদর্শন করেন। এ সময় দলটি বিমানবন্দর পরিচালনাকারীদের সাথে করোনাভাইরাস মোকাবেলার ব্যাপারে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা করেন।”

এদিকে ওমানের ট্র্যাভেল এজেন্টরাও জানিয়েছে, করোনাভাইরাসের ভয়ে অনেকে তাদের চীন ভ্রমণ বাতিল করছেন। বাংলাদেশী ট্র্যাভেল এজেন্ট ব্যবসায়ী আবু ইউসুফ বলেন, “চীনে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার সাথে সাথে মানুষ সেখানে ভ্রমণ ব্যাপারে সতর্ক হয়ে ওঠে। মার্চ মাসে অনুষ্ঠিতব্য চেরি ব্লসম ফেস্টিভাল চলাকালীন আমাদের প্রচুর চাহিদা রয়েছে, তবে চলমান পরিস্থিতির কারণে এবার বুকিং দেওয়ার ব্যাপারে সাড়া অনেক কম।’ তিনি আরও বলেন, “আমরা চীনের ট্যুর অপারেটরদের সাথেও যোগাযোগ করেছি, যাদের সাথে আমরা ট্যুরগুলি আয়োজন করি এবং তারাও চলমান পরিস্থিতির কারণে অনেক বুকিং ছেড়ে দিচ্ছে।”

মাস্কাট প্রতিনিধিঃ 

Mujib Borsho

ad

spellbitsoft

YOUTUBE-DIGITAL-KHOBOR

আর্কাইভ

February 2020
SSMTWTF
« Jan  
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
29 
%d bloggers like this: