নতুন সুলতানের সাথে দেখা করলেন প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী

ক্যাটাগরি: আন্তর্জাতিক, জাতীয়, প্রবাস, শিরোনাম, সর্বশেষ-সংবাদ

Posted: January 14, 2020 at 8:15 pm

নতুন সুলতানের সাথে দেখা করলেন প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী-Digital Khobor

ফাইল ছবি 


ওমানের নতুন সুলতান এর সাথে দেখা করলেন প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী

আজ ১৪ জানুয়ারি ওমানের স্থানীয় সময় বেলা ১২ টায় সালতানাত অব ওমানের সদ্য প্রয়াত সুলতান কাবুস বিন সাইদ আল সাইদের মৃত্যুতে শোকার্ত ওমানের প্রতি শ্রদ্ধা ও সম্মান জানাতে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ইমরান আহমদ এমপি ওমানের সুলতান মাননীয় হাইতাম বিন তারিক আল সাইদের সাথে তার প্রাসাদে সাক্ষাৎ করেন ও প্রধানমন্ত্রীর শোকবার্তা পৌঁছে দেন।

এসময় প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ সেলিম রেজা ও ওমানে নিযুক্ত বাংলাদেশের মান্যবর রাষ্ট্রদূত মোঃ গোলাম সারোয়ার উপস্থিত ছিলেন।

সাক্ষাৎকালে ওমানের সুলতান মাননীয় হাইতাম বিন তারিক আল সাইদ বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন এবং বাংলাদেশ ও ওমানের মধ্যে বিদ্যমান বর্তমান বন্ধুত্বপূর্ণ ও আন্তরিক সম্পর্কের কথা স্মরণ করেন। তিনি আশা প্রকাশ করেন দু’দেশের এ বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক আগামীতে আরও সুদৃঢ় হবে।

তবে এব্যাপারে ওমান প্রবাসীরা হতাশা ব্যক্ত করে অনেকেই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তাদের ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। ওমান প্রবাসী বীর মুক্তিযোদ্ধা নোমান মোহাম্মাদ বলেন, ‘বিশ্বের বিভিন্ন রাষ্ট্র প্রধান/সরকার প্রধানগন ওমানে এসেছেন প্রয়াত সুলতান কাবুসের জন্য শোক প্রকাশ এবং নব নির্বাচিত সুলতানকে শুভেচ্ছা জানাতে। অথচ আমাদের প্রধানমন্ত্রী দুবাইতে আছেন তিন দিনের সফরে। তিনি ওমানে না এসে পাঠিয়েছেন প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী মহোদয়কে। সরকার সবসময় আমরা ওমান প্রবাসীদের সাথে বিমাতাসূলভ আচরণ করে আসতেছে। ১৯৮৫ সালে ওমানের ১৫ বৎসর পূর্তি অনুষ্ঠানে দাওয়াত দিয়েছিলেন তৎকালীন রাষ্ট্রপতি এরশাদকে। তিনি না এসে পাঠালেন তৎকালীন স্বাস্থ্যমন্ত্রী সাকা চৌধুরীকে। ওমান সরকারের দাওয়াতের অমর্যাদার খেসারত এখনও ওমান প্রবাসীরা দিয়ে যাচ্ছি। এবারের খেসারত কি দিতে হয় আল্লাহ জানেন। এটা কূটনৈতিক ব্যর্থতা না অন্য কিছু?’

এব্যাপারে ওমানে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাস্ট্রদূত গোলাম সরওয়ার এর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, আজ বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রনালয়ের মাননীয় মন্ত্রী জনাব ইমরান আহমেদ ওমানের মহামান্য সুলতান হাইতাম বিন তারিক আল সাইদ এর সাথে দেখা করে শোক প্রকাশ করেছেন।

ওমানের সুলতানের মৃত্যুতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সরকার প্রধানরা ওমানে আসলেও আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কেন আসলেন না? এখানে প্রটোকল ইস্যু নাকি কূটনীতিক ইস্যু নাকি অন্য ইস্যু আছে এমন প্রশ্ন করলে রাস্ট্রদূত বলেন, ভবিষ্যতে আসবেন ইনশাআল্লাহ।

উল্লেখ্যঃ মধ্যপ্রাচ্যের শান্তিপ্রিয় দেশ ওমানের রাষ্ট্রপ্রধান সুলতান কাবুস বিন সাঈদ গত ১০-ই জানুয়ারি ইন্তেকাল করেন। তার মৃত্যুতে গোটা মধ্যপ্রাচ্যে শোঁকের ছায়া নেমে এসেছে। আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প থেকে শুরুকরে বিশ্বখ্যাত এমন কোনো নেতা নাই যে সুলতান কাবুসের মৃত্যুতে শোঁক প্রকাশ করেনি। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে রাষ্ট্রীয় শোঁক পালন করেছে। মধ্যপ্রাচ্যের সকল রাষ্ট্রপ্রধান সহ বিশ্বের প্রায় ৪০ টি দেশের রাষ্ট্রপ্রধানরা এসেছেন ওমানে। প্রয়াত সুলতান কাবুসের মৃত্যুতে শোঁক প্রকাশ ও নতুন রাষ্ট্রপ্রধান হাইথাম বিন তারিক আল সাঈদ কে সংবর্ধনা জানাতে এসেছেন এইসব বিশ্ব নেতারা।

মধ্যপ্রাচ্যের এই দেশটিতে প্রায় আট লাখ বাংলাদেশী রয়েছে। যাদের বেশীরভাগই শ্রমিক। আবার মধ্যপ্রাচ্যের অন্যান্য দেশের তুলনায় ওমানে বাংলাদেশী কিন্তু একেবারেই কম, ব্যাপারটা এমন না। চলতি বছর বাংলাদেশ সরকারের প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় ঘোষিত ৪২ জন বাণিজ্যিক গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি ‘সিআইপি’র মধ্যে ১২ জনই ওমান প্রবাসী। তারমানে বিশ্বের সর্বাধিক বাণিজ্যিক গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি (সিআইপি) এখন ওমানে। ব্যবসাবাণিজ্যে বেশ ভালো অবস্থানে রয়েছে ওমান প্রবাসীরা। দেশে রেমিটেন্স প্রেরণেও রয়েছে ওমান প্রবাসীদের ব্যাপক অবদান। বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, রেমিট্যান্স পাঠানোয় শীর্ষ ১০ দেশের মধ্যে ওমান অন্যতম। ২০১৯ সালের শেষ পাঁচ মাসে ওমান থেকে রেমিট্যান্স এসেছে ৫২ কোটি ৭৯ লাখ ডলার।

বর্তমানে ওমানে সবচেয়ে বেশি প্রবাসী বাংলাদেশের। ভারতের চেয়েও বেশি প্রবাসী রয়েছে ওমানে আমাদের বাংলাদেশের। এতকিছুর পরেও ওমান প্রবাসীদের সাথে সরকারের বিমাতৃসুলভ আচরণে হতাশ ওমান প্রবাসীরা। আজ বাংলাদেশ স্বাধীনতার পর কোনো রাষ্ট্রপ্রধান ওমানে গেছেন কিনা এমন তথ্য জানা নাই। তবে জানাগেছে ১৯৮৫ সালে ওমানের ১৫ বৎসর পূর্তি অনুষ্ঠানে দাওয়াত দিয়েছিলেন তৎকালীন রাষ্ট্রপতি প্রয়াত হোসেইন মোহাম্মাদ এরশাদকে। তিনি না যেয়ে তৎকালীন স্বাস্থ্যমন্ত্রী সাকা চৌধুরীকে পাঠিয়েছিলেন। আওয়ামীলীগ সরকার প্রবাস বান্ধব সরকার। প্রবাসীদের জন্য এই আওয়ামীলীগ সরকারই রেমিটেন্সের উপর ২% প্রণোদনা ঘোষণা করেছেন। এছাড়াও প্রবাসীদের নিয়ে বিভিন্ন সময় প্রধানমন্ত্রীর আশাবাদী বক্তব্যে দারুণ উজ্জীবিত হয়েছে প্রবাসীরা।

 

ডিজিটাল ডেস্ক 

 

spellbitsoft

YOUTUBE-DIGITAL-KHOBOR

আর্কাইভ

January 2020
SSMTWTF
« Dec  
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
25262728293031
%d bloggers like this: