২০২৩ সালের মধ্যে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে খাবারের ব্যবস্থা

ক্যাটাগরি: শিক্ষা-সাহিত্য-সংস্কৃতি, শিরোনাম, সমগ্র বাংলাদেশ, সর্বশেষ-সংবাদ

Posted: August 21, 2019 at 10:55 am

২০২৩ সালের মধ্যে সারাদেশের সকল প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ‘মিড ডে’ মিল চালুর লক্ষ্য নিয়ে আজ মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে ‘জাতীয় স্কুল মিল নীতি-২০১৯’-এর খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন দেয়া হয়েছে। আজ সকালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে (পিএমও) অনুষ্ঠিত এই বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
পরে, সচিবালয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে মন্ত্রী পরিষদ সচিব মো. শফিউল আলম বলেন, ‘বিভিন্ন স্থানে যে মিড ডে মিল চালু হয়েছে পাইলট ভিত্তিতে, তাকে কিভাবে সমন্বিতভাবে সারাদেশে ছড়ানো যায় তার জন্য এই নীতিমালাটি করা হয়েছে।’

এই কর্মকর্তা জানান, সারাদেশে মিড ডে মিল চালু করতে হলে এবং সেক্ষেত্রে কেবল বিস্কুট সরবরাহ সরকারকে বছরে ২ হাজার ৮৩৫ কোটি টাকা খরচ হবে (৯ টাকা হারে)। আর ৫দিন রান্না করা খাবার দৈনিক শিক্ষার্থী প্রতি ১৬ থেকে ১৮ টাকা হারে) এবং একদিন বিস্কুট দেয়া হয় তাহলে খরচ ৫ হাজার ৫৬০ কোটি ৮০ লাখ টাকা এবং বিস্কুট এবং ডিম, কলা ও রুটি দেয়া হলে ৭ হাজার ৪৭৫ কোটি টাকা (২৫ টাকা হারে)।
অদূর ভবিষ্যতে সারাদেশের ৬৬ হাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক কোটি ৪০ লাখ শিক্ষার্থীর জন্য মিড ডে মিল চালুতে জন্য সরকার পিপিপি’র ভিত্তিতে প্রকল্প বাস্তবায়নের উদ্যোগ নিচ্ছে বলেও তিনি জানান। একইসঙ্গে বর্তমানে ১০৪টি উপজেলায় ১৫ হাজার ৩৪৯টি স্কুলের ৩০ লাখ শিক্ষার্থীকে এই মিডডে মিল কর্মসূটির আওতায় আনা হয়েছে। এ বছরের জন্য এই বাজেট ৪৭৪ কোটি টাকা এবং ২০২০ সাল পর্যন্ত প্রকল্পটির মেয়াদ রয়েছে। ২০২১ সালের জানুয়ারি থেকে নতুন প্রকল্প বাস্তবায়ন শুরু হবে।

খাবার হিসেবে শিশুদের সপ্তাহে পাঁচ দিন রান্না করা পুষ্টিকর গরম খাবার ও একদিন বিস্কুট দেওয়া হবে। খাবারে বৈচিত্র্য আনার জন্য স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত শাক সবজি ভাত ও আমিষের চাহিদা পূরণের জন্য ডিমের ব্যবস্থা রাখা হবে। কোন দিন কী খাবার দেওয়া হবে সেটি স্কুলের ব্যবস্থাপনা কমিটি, অভিভাবক ও স্থানীয়দের সঙ্গে আলোচনার ভিত্তিতে ঠিক করা হবে।

তেজগাঁওয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মো. শফিউল আলম সচিবালয়ে সাংবাদিকদের এসব কথা জানান। তিনি বলেন, অনুমোদন পাওয়া এই নীতিতে শিশুর প্রাত্যহিক পুষ্টি চাহিদার অন্তত ৩০ শতাংশ স্কুল থেকে মেটানোর লক্ষ্য রয়েছে। ২০২৩ সালের মধ্যে এটার বাস্তবায়ন হবে।

Mujib Borsho

ad

spellbitsoft

YOUTUBE-DIGITAL-KHOBOR

আর্কাইভ

February 2020
SSMTWTF
« Jan  
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
29 
%d bloggers like this: